সাবধান যুব সমাজ

আজ এমন একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যা আমাদের যুব সমাজের সকলের জানা খুবই জরুরি।আমরা এখন আধুনিক যুগে বসবাস করি আর আমাদের যুব সমাজ বসবাস করে অত্যাধুনিক যুগে। রাস্তা ঘাট, স্কুল, কলেজ এমন কোন জায়গা নেই যেখানে এই অপরাধটির দেখা মিলে না। আর তা হল নারীদের উত্যক্ত করা। স্কুল কলেজের সামনে নারীদের উত্যক্ত করা এখন একটি ফ্যাশন হয়ে গেছে। এই নিয়ে আমাদের দেশে অনেক আইনও রয়েছে। আইনের কথা শুনে অনেকে ভাবছেন কত আইন দেখেছি আর হজম করে ফেলেছি। যারা ভাবছেন তারা অবশ্য ভুল চিন্তা করেন নায়। আমাদের দেশের আইন সম্পরকে সকলের একই ধারনা এবং কিছুটা সত্যও বটে। কিন্তু সেই আইনের চিপাই পরে খুব সহজে বেঁচে গেছেন এমন লোকের সংখ্যা খুবই অল্প। আমি বলছিলাম আপনার কথা, যদি আপনি হয়ে যান সেই চিপার শিকার তখন কি করবেন? তাই সাবধান থাকতে হবে, অপরাধ থেকে দূরে থাকতে হবে।

যাইহোক মূল কোথায় আসা যাক, প্রথমেই আমি একটি অপরাধের কথা বলেছি তা হল নারীদের উত্যক্ত করা। আসুন জেনে নেই এই অপরাধের কি শাস্তি হতে পারে। দণ্ডবিধির ৫০৯ ধারা মতে কোন নারীর শ্লীলতাহানির উদ্দেশে কথা, অঙ্গভঙ্গি বা কোন কাজ করলে যাতে সে নারী শুনতে পায় এরুপ কোন খারাপ কথা বললে বা শব্দ করলে অথবা সে নারী দেখতে পায় এরুপ কোন ভঙ্গিমা করলে যাতে গোপনীয়তার অধিকার লঙ্ঘন করে তাহলে সে ব্যাক্তি ১ বছরের জন্য বিনাশ্রম কারাদণ্ড বা অর্থ দণ্ড অথবা উভয়ইদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে।তাছাড়া যদি কোন ব্যাক্তি মাতাল অবস্তায় কোন নারীকে প্রকাশে বা গোপনে উত্যক্ত করে তবে সে ব্যাক্তি ২৪ ঘন্টার জন্য বিনাশ্রম কারাদণ্ডে বা অর্থ দণ্ডে অথবা উভয়ইদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে(দণ্ডবিধি ৫১০)। আর যদি কোন ব্যাক্তি কোন নারীর প্রতি অসতিত্তারোপ করার ভয় দেখায় তবে সেই ব্যাক্তি ৫০৬ ধারা অনুযায়ী ৭ বছরের জন্য কারাদণ্ডে বা অর্থ দণ্ডে অথবে উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।
তাই অপরাধ করার আগে সাবধান।

শরীফুল ইসলাম
শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ
স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ

You may also like...

error: Content is protected !!