মায়ের অভিভাবকত্ব সম্পর্কে আমরা কতটুকু জানি?

11247504_376999522484189_7100902199671622459_n

অভিভাবকত্ব কি?

নাবালক, নির্বোধ ও উণ্মাদ যারা নিজের দেখাশোনা নিজে করতে অক্ষম তাদের বিষয়-সম্পত্তি, শিক্ষা, সামাজিক সমস্যা, নিরাপত্তা এবং প্রয়োজনবোধে তাদের পক্ষে যে কোন মামলা- মোকদ্দমা পরিচালনার দায়িত্ব আইনসম্মতভাবে পালন করাই হচ্ছে অভিভাবকত্ব৷ নাবালকরা তাদের অপরিপক্ক বুদ্ধি,অভিজ্ঞতার অভাব এবং সীমিত বিচার বুদ্ধি সম্পন্ন হওয়ার কারণে অন্য কেউ যেন তার দূর্বলতার সুযোগ গ্রহণ করতে না পারে সেজন্য তাদের অধিকার সংরক্ষণের প্রয়োজনে অভিভাবকদের দরকার ।

আইনগত ব্যাখ্যাঃ

মুসলিম আইনে বাবা হলেন সন্তানের প্রকৃত আইনগত অভিভাবক। এ আইনে মা সন্তানের অভিভাবক হতে পারেন না। তবে তিনি সন্তানের রক্ষণাবেক্ষণ করতে পারেন বা জিম্মাদার হতে পারেন। মুসলিম আইনে বাবাই একমাত্র অভিভাবক। তার মৃত্যুতে অন্য কেউ অভিভাবক নিযুক্ত হবেন। তবে একটা নির্দিষ্টকরণ বয়স পর্যন্ত মা সন্তানদের  অভিভাবক বা তত্ত্বাবধানের অধিকারীনি। কিন্তু তিনি স্বাভাবিক অভিভাবক নন। নাবালকের নিকট-আত্নীয় নাবালকের প্রকৃতিগত অভিভাবক বলে গন্য হয়৷ অনেক সময় কোন বিশেষ ব্যক্তিকে অভিভাবকের দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে।  মুসলিম আইনে পিতা জীবিত থাকলে তিনিই নাবালকের শরীর ও সম্পত্তির স্বাভাবিক ও আইনানুগ অভিভাবক৷ নাবালকের পক্ষে কোন কাজ সম্পন্ন করতে হলে পিতাকে আদালতের হুকুমের জন্য অপেক্ষা করতে হয় না। ছেলের ৭ বছরের পরে ও মেয়ের বয়ঃসন্ধির পর পিতা নাবালকের অভিভাবকত্বের অধিকার পান। তবে’ পিতার এই অধিকার চূড়ান্ত নয়। সবক্ষেত্রেই আদালত সন্তানের কল্যাণকে প্রাধান্য দেবেন। পিতার আচরণের কারণে (যেমনঃ পিতা যদি কখনই সন্তানদের ভরণপোষণ না দেয়) সন্তানদের মায়ের কাছ  থেকে আলাদা করা যুক্তিসঙ্গত হবে না। কারণ বাবা তার আচরণ দিয়ে বুঝিয়েছেন যে সে সন্তানের কল্যাণে আগ্রহী নয়। আবার মা যদি বাবার আর্থিক সাহায্য ছাড়াই সফলভাবে সন্তানদের নিজ খরচে লালন পালন করে, সেক্ষেত্রে আদালত সন্তাদের পিতার কাছে দিতে অস্বীকার করতে পারে। বিয়ে–বিচ্ছেদের পর মার অভিভাবকত্ব: সন্তানের অভিভাবকত্ব নিয়ে বিচ্ছেদপ্রাপ্ত দম্পত্তির মধ্যে প্রায়ই বিরোধ তৈরী হয়। মা কিছু সময় পর্যন্ত সন্তানের জিম্মাদার থাকেন। মুসলিম  আইনে মা নিচের সময় পর্যন্ত সন্তানের জিম্মাদার থাকতে পারেন।

দু:খিত এই লেখাটি সরিয়ে আমাদের বিশেষ বাংলা সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে নিম্নোক্ত লিংকে আপনি এই আর্টিকেলটি পাবেন। Sorry, The article has been shifted to our special Bangla[Law] website. You shall have the article at the link given bellow.

(এটি একটি অস্থায়ী বার্তা কিছুদিন পরে যা মুছে ফেলা হবে। This is a temporary message)

নতুন লিংক | New Link: https://wp.me/p9yhPP-cU

Comments

comments

You may also like...

1 Response

  1. jotpot@ovi.com' Rayan Islam says:

    অসাধারন
    ধনবাদ জনি

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: